Wednesday , November 14 2018
Home / জাতীয় / বাস ও রেলের আগাম টিকিট বিক্রি শুরু

বাস ও রেলের আগাম টিকিট বিক্রি শুরু

অনলাইন ডেস্কঃআজ শুক্রবার থেকে ঈদযাত্রার বাস ও ট্রেনের অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু হয়েছে। আর ২০ আগস্ট থেকে বিক্রি হবে লঞ্চের অগ্রিম টিকিট।

আজ সকাল ৬টা থেকে বিভিন্ন বাসের কাউন্টারের নির্ধারিত স্থানে অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু করেছে।গত শুক্রবারই ঘোষণা দেওয়া হয় আজ থেকে বাসের টিকিট বিক্রির কথা।

গতকাল ট্রেনের টিকিট নিয়ে ব্রিফিং করে রেলপথ মন্ত্রণালয়। রেলভবনে গতকাল ঈদসেবা নিয়ে কর্মকর্তাদের সঙ্গে এক বৈঠকের পর সাংবাদিকদের সামনে ট্রেনের আগাম টিকিট বিক্রির সূচি তুলে ধরেন রেলপথমন্ত্রী মুজিবুল হক। তিনি জানান, ১৮ থেকে ২২ আগস্ট ঢাকার কমলাপুর ও চট্টগ্রাম রেলওয়ে স্টেশন থেকে ঈদযাত্রার আগাম টিকিট বিক্রি হবে। প্রতিদিন সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত কাউন্টারে এই টিকিট পাওয়া যাবে। আজ শুক্রবার বিক্রি হবে ২৭ আগস্টের যাত্রার টিকিট।

জানা গেছে, ২৭ আগস্টের টিকিট বিক্রি হবে আজ। আর আগামীকাল শনিবার বিক্রি হবে ২৮ আগস্টের টিকিট। এভাবে ২০ আগস্ট বিক্রি হবে ২৯ আগস্টের টিকিট, ২১ আগস্ট বিক্রি হবে ৩০ আগস্টের এবং ২২ আগস্ট বিক্রি হবে ৩১ আগস্টের টিকিট। ১ সেপ্টেম্বরের ব্যাপারে ঘোষণা না থাকলেও স্বাভাবিক নিয়মে ওই দিনের টিকিট কাউন্টার থেকে মিলবে ২৩ আগস্ট।

বর্ষায় দেশের সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থা খারাপ থাকায় ট্রেনের ওপর এবার বাড়তি চাপ পড়বে জানিয়ে রেলপথমন্ত্রী বলেন, চাপ সামলাতে রেলওয়ে সব প্রস্তুতি নিয়েছে। ঈদের সময় প্রতিদিন সারা দেশে প্রায় ২ লাখ ৬৫ হাজার যাত্রী পরিবহন করবে রেলওয়ে। আমরা ১৩৮টি কোচ বাড়তি যোগ করেছি। এ ছাড়া ইঞ্জিনের সংখ্যা বাড়িয়েছি। আগে ঈদের তিন দিন আগে থেকে ঈদের বিশেষ ট্রেন চালাতাম। এবার ঈদের চার দিন আগে থেকে সাত জোড়া স্পেশাল ট্রেন দিচ্ছি, তা চলবে ঈদের পর সাত দিন পর্যন্ত।

রেল কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, এবার ঈদ উপলক্ষে ২৯ আগস্ট থেকে ১ সেপ্টেম্বর এবং ঈদের পরে ৩ সেপ্টেম্বর থেকে ৯ সেপ্টেম্বর সাত জোড়া বিশেষ ট্রেন চালু করা হবে। ঢাকা থেকে দেওয়ানগঞ্জ, রাজশাহী, পার্বতীপুর এবং চট্টগ্রাম থেকে চাঁদপুর রুটে যাত্রী পরিবহন করবে এসব বিশেষ ট্রেন। শোলাকিয়া ঈদগায় যাতায়াতের জন্য ঈদের দিন ভৈরববাজার থেকে কিশোরগঞ্জ এবং ময়মনসিংহ থেকে কিশোরগঞ্জ রুটে দুটি ট্রেন চালানো হবে।

বন্যায় উত্তরাঞ্চলের বিভিন্ন লাইন ক্ষতিগ্রস্ত হলেও ঈদযাত্রার বিষয়টি মাথায় রেখে আলাদা প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে বলেও জানান রেলমন্ত্রী।

তিনি বলেন, প্রাকৃতিক দুর্যোগের ওপর তো কারো হাত নেই। তার পরও আমাদের চেষ্টা আছে। সেখানে জনবল দেওয়া আছে। আশা করি ঈদের আগে রেললাইনগুলো মেরামত করা যাবে। আমরা সর্বশেষ চেষ্টা করব। এর পরও সেসব লাইনে ট্রেন চালাতে না পারলে, আমরা যাত্রীদের বলে দেব ট্রেন চালাতে পারছি না।

জানা গেছে, এবার ২ সেপ্টেম্বর ঈদ বিবেচনায় নিয়ে অগ্রিম টিকিট বিক্রি করবে বাসমালিকরা। ঈদের আগে শেষ কর্মদিবস হচ্ছে ৩১ আগস্ট। কেউ কেউ এই দিন ছুটি নিয়ে একদিন আগেই, অর্থাৎ ৩০ আগস্ট ঢাকা ছেড়ে চলে যাবেন। কেউ কেউ ৩১ আগস্ট অফিস করেই ঢাকা ছাড়বেন। তাই সবচেয়ে বেশি চাপ থাকবে ৩০ ও ৩১ আগস্ট। এই দুই দিনে সবচেয়ে বেশি মানুষ ঢাকা ছাড়বেন বলে মনে করছেন পরিবহনকর্মীরা। তবে বন্যা ও ভাঙা রাস্তার কারণে সড়কের চেয়ে ট্রেনের ওপর মানুষের চাপ বেশি পড়তে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

টপারবিডি/বাংলা ৭৭

আরও পড়ুন

আগামী নির্বাচনে মহাজোটের সঙ্গে থাকবো কিনা সেটা পরিস্থিতিই বলে দেবে

টপারবিডি ডেস্কঃ প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ দূত ও জাতীয় পার্টির (জাপা) চেয়ারম্যান এইচএম এরশাদ বলেছেন, আগামী নির্বাচনে …