Thursday , July 18 2019
Home / ক্যারিয়ার / বিশ্বের শ্রেষ্ঠ ধনী বাক্তিকে সফল হতে ব্যর্থ হতে হয়েছিল ৫ হাজার বারেরও বেশি

বিশ্বের শ্রেষ্ঠ ধনী বাক্তিকে সফল হতে ব্যর্থ হতে হয়েছিল ৫ হাজার বারেরও বেশি

অনলাইন ডেস্কঃ জেমস ডাইসন একজন সফল ব্যক্তি। বিশ্বের সব থেকে নামকরা ব্যাগ লেস ভ্যাকুয়াম ক্লিনার্সের প্রতিষ্ঠান তার, যা বিশ্বে ৫০ টিরও বেশি দেশে চলছে অবিরত। মজার ব্যাপার হলো, এ মেশিনটিকে যথাযথ রূপ দেওয়ার আগে জেমস ডাইসনকে ব্যর্থ হতে হয়েছিল পাঁচ হাজার বারেরও বেশি। এ জন্য জেমস ক্লান্তিহীনভাবে কাজ করেন পাঁচটি বছর। এই ভ্যাকুয়াম তৈরির জন্য তিনি নানা ধরনের আইডিয়া তৈরি করতেন, কিন্তু সবগুলো ব্যর্থ হতেই থাকে।

এভাবে তিনি দিন দিন পরিবারকে কষ্ট দিচ্ছিলেন। কিন্তু কোনো উপায় বের হচ্ছিল না। তিনি হতাশ হতেন না, কিন্তু বাস্তবতা তাকে পেছনে ফেলে দিচ্ছিল ভ্যাকুয়াম ক্লিনার্সকে পুরোপুরি দাঁড় করানোর জন্য চাকরিটা ছেড়ে দিলেন। এ সময় তাকে স্ত্রীর উপার্জন দিয়েই চলতে হয়েছে। এমন অনেক পরিস্থিতি এসেছে, যাতে হাল ছেড়ে দেওয়াটাই ছিল স্বাভাবিক। কিন্তু জেমসের কাছে এটা শুধু একটা মেশিন আবিষ্কার ছিল না, এটা ছিল তার জীবন।

৫ বছর পর মেশিনটি তৈরি হলেও এটিকে কেনার জন্য কোনো কোম্পানিকে রাজি করাতে পারেননি তিনি। তিন বছর তিনি শুধু এক কোম্পানি থেকে আরেক কোম্পানির দরজায় ঘুরেছেন। সবাই মেশিনের কার্যক্ষমতার প্রশংসা করলেও বাজারে চলবে কিনা, এটা নিয়ে সন্দেহ পোষণ করত। কারণ বাজার সয়লাব হয়ে আছে ব্যাগওয়ালা ভ্যাকুয়াম ক্লিনারে। সেখানে এ রকম ব্যাগহীন একটা ভ্যাকুয়ামকে ক্রেতারা কীভাবে নেবে, সেটা নিয়েই সবার ভয় ছিল। এ কারণে কেউ সাহস করে তা বাজারজাত করতে চায়নি।

অবশেষে ১৯৯৩ সালে জেমস নিজেই এটির বাজারজাতের উদ্যোগ শুরু করলেন। মাত্র দেড় বছরের মাথায় ডিসি ০১ হয়ে উঠল বাজারের সবচেয়ে বেশি বিক্রীত ভ্যাকুয়াম ক্লিনার। অনেক চেষ্টার পর এখন তিনি বিশ্বের শ্রেষ্ঠ ধনীর একজন। ৭৮০ কোটি পাউন্ড নিয়ে ধনীদের তালিকায় নিজের স্থান দখল করেছেন স্যার জেমস ডাইসন।

টপারবিডি/বাংলা ৭৭

Check Also

তিন ব্যাংকে ৩৬৭ পদে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ

onlai ব্যাংকার্স সিলেকশন কমিটির সদস্যভুক্ত তিন ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানে ‘ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা (সাধারণ)’ পদে ৩৬৭টি …