Saturday , December 15 2018
Home / খেলাধুলা / দিনের শুরুতে স্পিন আতঙ্কে স্টিভেন স্মিথ বোল্ড
মেহেদী হাসান মিরাজের উল্লাস

দিনের শুরুতে স্পিন আতঙ্কে স্টিভেন স্মিথ বোল্ড

অনলাইন ডেস্কঃ স্পিন আতঙ্কই ভর করেছে অস্ট্রেলিয়া শিবিরে। দিনের শুরুতে সেটা আরো একবার প্রমাণ হলো। অধিনায়ক স্টিভেন স্মিথ সাজঘরে ফিরলেন তরুণ তুর্কি মেহেদী হাসান মিরাজের বলে। মাত্র ৮ রানে বোল্ড হয়ে মাঠ ছাড়লেন এই অধিনায়ক।

স্পিনেই তাদের ভয় ছিল। সেই স্পিনেই কুপোকাত হয়েছে অস্ট্রেলিয়া। কাল শেষ বেলায় পর পর তিন উইকেট হারিয়ে চাপে ছিল অসিরা। আজ দিনের শুরুটাও হলো স্পিনে। প্রথম বল হাতে নেমেছেন মেহেদী হাসান মিরাজ।

মিরাজের হাতেই দিনের শুরু

স্পিনেই তাদের ভয় ছিল। সেই স্পিনেই কুপোকাত হয়েছে অস্ট্রেলিয়া। কাল শেষ বেলায় পর পর তিন উইকেট হারিয়ে চাপে ছিল অসিরা। আজ দিনের শুরুটাও হলো স্পিনে। প্রথম বল হাতে নেমেছেন মেহেদী হাসান মিরাজ।

আজ সকাল ১০টায় ঢাকা টেস্টের দ্বিতীয় দিনের খেলা শুরু হয়েছে।

কাল সকালে টস জিতে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেয় অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম। সব উইকেট হারিয়ে প্রথম ইনিংসে তাদের সংগ্রহ ছিল ২৬০ রান।

বিকেলে ব্যাট করতে নেমে ১৮ রানে ৩ উইকেট হারায় অস্ট্রেলিয়া।

দুই ম্যাচ সিরিজের প্রথম টেস্টে তিন স্পিনার নিয়ে খেলতে নেমেছে বাংলাদেশ। সাকিব আল হাসান, মেহেদী হাসান মিরাজ ও তাইজুল ইসলাম রয়েছেন স্পিন বিভাগে। একাদশে সুযোগ পাননি লিটন কুমার দাস, মুমিনুল হক ও তাসকিন আহমেদ।

টেস্ট ক্রিকেট ইতিহাসে এখন পর্যন্ত মাত্র চারবার মুখোমুখি হয়েছে বাংলাদেশ ও অস্ট্রেলিয়া। চার ম্যাচের ভেন্যু ছিল- অস্ট্রেলিয়ার ডারউইন ও কেয়ার্নস এবং বাংলাদেশের ফতুল্লা ও চট্টগ্রাম। আজ ঢাকার মিরপুর শেরেবাংলা জাতীয় স্টেডিয়ামে পঞ্চমবারের মতো মুখোমুখি হচ্ছে বাংলাদেশ ও অস্ট্রেলিয়া। এই ভেন্যুতে আগে কখনোই মুখোমুখি হয়নি তারা।
তবে বাংলাদেশের চেয়ে অভিজ্ঞতায় অনেক পিছিয়ে থেকেই মিরপুরের ভেন্যুতে খেলতে নামবে অস্ট্রেলিয়া। কারণ মিরপুরের ভেন্যুতে কখনোই টেস্ট খেলেনি অসিরা। তবে নিজেদের হোম কন্ডিশন ভেন্যু মিরপুরে এখন পর্যন্ত ১৫টি টেস্ট খেলেছে বাংলাদেশ।

২০০৭ সালে মিরপুরের ভেন্যুতে প্রথমবারের টেস্ট খেলতে নামে বাংলাদেশ। এরপর ১৪ টেস্টে দুটি জয়ের স্বাদ পেয়েছে টাইগাররা। এই ভেন্যুতে বাংলাদেশের দুটি জয় এসেছে জিম্বাবুয়ে ও ইংল্যান্ডের বিপক্ষে। ২০১৪ সালের অক্টোবরে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ৩ উইকেটে এবং ২০১৬ সালের অক্টোবরে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ১০৮ রানে জিতেছিলো বাংলাদেশ।
এছাড়া ১০টি হার ও ৩টি ড্র’র স্বাদও পেয়েছে বাংলাদেশ। ভারত-শ্রীলঙ্কা-ওয়েস্ট ইন্ডিজ-পাকিস্তানের কাছে দুইবার করে এবং দক্ষিণ আফ্রিকা-ইংল্যান্ডের কাছে একবার করে টেস্ট হারে টাইগাররা। আর নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে দুইবার টেস্ট ড্র করে বাংলাদেশ।
মিরপুরের ভেন্যুতে সর্বশেষ গেল বছরের অক্টোবরে টেস্ট ম্যাচ খেলেছিল বাংলাদেশ। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে দুই ম্যাচ সিরিজের দ্বিতীয়টি ১০৮ রানের বড় ব্যবধানে জয় পেয়েছিলো টাইগাররা। ফলে টেস্ট সিরিজ ১-১ সমতায় শেষ করতে পারে মুশফিকুর রহিমের দল।

টপারবিডি/বাংলা ৭৭

আরও পড়ুন

দক্ষিণ আফ্রিকান পেসারদের পাল্টা জবাব দিয়েছেন ভারতীয়রা

অনলাইন ডেস্কঃ দক্ষিণ আফ্রিকার এক মাঠে পেসাররা নাভিশ্বাস তুলে দিচ্ছেন ব্যাটসম্যানদের। এমন এক বাক্যের পর …