Monday , April 6 2020
Home / জাতীয় / যাওয়ার আগে যা বলে গেলেন প্রধান বিচারপতি
আজ রাত দশটার দিকে নিজের সরকারি বাসভবনের সামনে প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা

যাওয়ার আগে যা বলে গেলেন প্রধান বিচারপতি

অনলাইন ডেস্কঃ  প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা বলেছেন, ‘আমি সম্পূর্ণ সুস্থ আছি। কিন্তু ইদানিং একটি রায় নিয়ে রাজনৈতিক মহল, আইনজীবী ও বিশেষভাবে সরকারের মাননীয় কয়েকজন মন্ত্রী ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আমাকে ব্যক্তিগতভাবে যেভাবে সমালোচনা করেছেন, এতে আমি সত্যিই বিব্রত।’

আজ শুক্রবার রাত দশটার দিকে শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের উদ্দেশ্যে সরকারি বাসভবন ছাড়ার সময় এক চিঠিতে প্রধান বিচারপতি এ কথা বলেন। আজ রাতেই অস্ট্রেলিয়ার উদ্দেশ্যে ঢাকা ছাড়ার কথা প্রধান বিচারপতির।
প্রধান বিচারপতির প্যাডে লেখা সেই চিঠিতে বলা হয়েছে, ‘আমার দৃঢ় বিশ্বাস, সরকারের একটি মহল আমার রায়কে ভুল ব্যাখ্যা প্রদান করে পরিবেশন করায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আমার প্রতি অভিমান করেছেন, যা অচিরেই দূরীভূত হবে বলে আমার বিশ্বাস। সেই সাথে বিচার বিভাগের স্বাধীনতা নিয়ে আমি একটু শঙ্কিত বটে। কারণ, গতকাল প্রধান বিচারপতির কার্যভার পালনরত দায়িত্বরত প্রবীণতম বিচারপতির উদ্ধৃতি দিয়ে মাননীয় আইনমন্ত্রী প্রকাশ করেছেন যে, দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি অচিরেই সুপ্রিম কোর্টের প্রশাসনে পরিবর্তন আনবেন। প্রধান বিচারপতির প্রশাসনে দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি কিংবা সরকারের হস্তক্ষেপ করার কোনো রেওয়াজ নেই। তিনি শুধুমাত্র রুটিনমাফিক দৈনন্দিন কাজ করবেন। এটিই হয়ে আসছে। প্রধান বিচারপতির প্রশাসনে হস্তক্ষেপ করলে এটি সহজেই অনুমেয় যে, সরকার উচ্চ আদালতে হস্তক্ষেপ করছে। এবং এর দ্বারা বিচার বিভাগ ও সরকারের সম্পর্কে আরও অবনতি হবে। এটি রাষ্ট্রের জন্য কল্যাণ বয়ে আনবে না।’

উল্লেখ্য, গত আগষ্ট মাসের প্রথম সপ্তাহে সংবিধানের ষোড়শ সংশোধনীর বাতিলের রায় দেন প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বাধীন আপিল বিভাগ। রায়ে প্রধান বিচারপতির পর্যবেক্ষণ নিয়ে পক্ষে-বিপক্ষে শুরু হয় নানা আলোচনা-সমালোচনা। ক্ষমতাসীন দলের নেতাদের পক্ষ থেকে তার অপসারণেরও দাবি তোলা হয়। এর মধ্যেই ২৫ দিনের অবকাশ শেষে গত ২রা অক্টোবর সুপ্রিমকোর্ট খোলার দিনই অসুস্থতার কারণ দেখিয়ে ১লা নভেম্বর পর্যন্ত এক মাসের ছুটি চেয়ে রাষ্ট্রপতির কাছে চিঠি দেন সুরেন্দ্র কুমার সিনহা। এরপর গত মঙ্গলবার তিনি আইন মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে প্রেসিডেন্টকে তার বিদেশ ভ্রমণের বিষয়টি চিঠি দিয়ে অবহিত করেন। ওই চিঠিতে ১৩ই অক্টোবর থেকে ১০ই নভেম্বর পর্যন্ত প্রধান বিচারপতি অস্ট্রেলিয়ায় থাকতে চান বলে উল্লেখ করা হয়।

 

টপারবিডি-বাংলা ৭৭ম ৪৫০

Check Also

আগামী নির্বাচনে মহাজোটের সঙ্গে থাকবো কিনা সেটা পরিস্থিতিই বলে দেবে

টপারবিডি ডেস্কঃ প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ দূত ও জাতীয় পার্টির (জাপা) চেয়ারম্যান এইচএম এরশাদ বলেছেন, আগামী নির্বাচনে …