Wednesday , October 20 2021
Home / আন্তর্জাতিক / রাশিয়ার আবিষ্কৃত এক ক্ষেপণাস্ত্রেই নিশ্চিহ্ন হয়ে যাবে একটি দেশ!

রাশিয়ার আবিষ্কৃত এক ক্ষেপণাস্ত্রেই নিশ্চিহ্ন হয়ে যাবে একটি দেশ!

অনলাইন ডেস্কঃ একটি মাত্র ক্ষেপণাস্ত্রের আঘাতে পুরো একটি দেশ নিশ্চিহ্ন হয়ে যেতে পারে। পরমাণু অস্ত্রবাহী এ ক্ষেপণাস্ত্র একসাথে ১২টি পরমাণু ওয়ারহেড বহন করতে সক্ষম। গত বৃহস্পতিবার রাশিয়া স্যাটান-২ নামক এই ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালিয়েছে।

এই ক্ষেপণাস্ত্রে কত বড় দেশ নিশ্চিহ্ন হতে পারে তা পরিষ্কার করে বলা হয়নি। তবে বিভিন্ন সূত্রে এর আগে দাবি করা হয়েছে যে, ফ্রান্স ও জার্মানির আয়তন যত ঠিক তত বড় একটি দেশ এ ক্ষেপণাস্ত্রের আঘাতে নিশ্চিহ্ন হয়ে যাবে।

রুশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, মস্কোর ৫০০ মাইল উত্তর থেকে এ ক্ষেপণাস্ত্র ছোঁড়া হয়। তিন হাজার ছয় শ’ মাইল পথ পাড়ি দিয়ে নির্দিষ্ট লক্ষ্যবস্তুতে এটি আঘাত হানে।

ক্রেমলিন সূত্র জানিয়েছে, ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষার অনুষ্ঠানে প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন উপস্থিত ছিলেন এবং তিনি নিজেই ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণ করেন।

রুশ প্রতিরক্ষা জানায়, যেসব লক্ষ্য নিয়ে ক্ষেপণাস্ত্রটি পরীক্ষা করা হয়েছিল তার সবই অর্জিত হয়েছে। এ ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা উপলক্ষে সাবমেরিন থেকে তিনটি ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র ছোঁড়া হয়। এসব সাবমেরিনের দুটি জাপান ও উত্তর কোরিয়ার কাছে এবং একটি ব্যারেন্ট সাগরে মোতায়েন রয়েছে।

স্যাটান-২ বা আরএস-২৮ ক্ষেপণাস্ত্র ১০ টন বা ১০ হাজার কেজি বিস্ফোরক নিয়ে প্রতি সেকেন্ডে ৪.৩ মাইল পথ পাড়ি দিতে পারে। ক্ষেপণাস্ত্রটির ধ্বংস ক্ষমতা ৪০ মেগাটন যা ১৯৪৫ সালে জাপানের হিরোশিমা ও নাগাসাকি শহরে আমেরিকার ব্যবহার করা অ্যাটম বোমার চেয়ে ২০০০ গুণ বেশি।

একসাথে ৪টি ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা চালিয়েছে রাশিয়া
রাশিয়া একটি আন্তঃমহাদেশীয় ব্যালেস্টিক ক্ষেপণাস্ত্রসহ বেশ কয়েকটি ক্ষেপণাস্ত্রের সফল পরীক্ষা চালিয়েছে। দেশটির প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে বলেছে, বৃহস্পতিবার রাশিয়ার বিভিন্ন স্থান থেকে এসব ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালানো হয়।

বিবৃতিতে বলা হয়েছে, রাশিয়ার উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলে অবস্থিত বিমান ঘাঁটি প্লেসেতস্ক থেকে ‘তোপোল-এম’ নামের আন্তঃমহাদেশীয় ব্যালেস্টিক ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালানো হয়। রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানায়, দেশের বিভিন্ন স্থানে একসাথে যে বিশাল সামরিক মহড়া চালানো হচ্ছে তার অংশ হিসেবে এসব ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করা হয়।

স্যাটান-২ বা আরএস-২৮ ক্ষেপণাস্ত্র ১০ টন বা ১০ হাজার কেজি বিস্ফোরক নিয়ে প্রতি সেকেন্ডে ৪.৩ মাইল পথ পাড়ি দিতে পারে। ক্ষেপণাস্ত্রটির ধ্বংস ক্ষমতা ৪০ মেগাটন যা ১৯৪৫ সালে জাপানের হিরোশিমা ও নাগাসাকি শহরে আমেরিকার ব্যবহার করা অ্যাটম বোমার চেয়ে ২০০০ গুণ বেশি।

একসাথে ৪টি ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা চালিয়েছে রাশিয়া
রাশিয়া একটি আন্তঃমহাদেশীয় ব্যালেস্টিক ক্ষেপণাস্ত্রসহ বেশ কয়েকটি ক্ষেপণাস্ত্রের সফল পরীক্ষা চালিয়েছে। দেশটির প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে বলেছে, বৃহস্পতিবার রাশিয়ার বিভিন্ন স্থান থেকে এসব ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালানো হয়।

বিবৃতিতে বলা হয়েছে, রাশিয়ার উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলে অবস্থিত বিমান ঘাঁটি প্লেসেতস্ক থেকে ‘তোপোল-এম’ নামের আন্তঃমহাদেশীয় ব্যালেস্টিক ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালানো হয়। রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানায়, দেশের বিভিন্ন স্থানে একসাথে যে বিশাল সামরিক মহড়া চালানো হচ্ছে তার অংশ হিসেবে এসব ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করা হয়।

টপারবিডি-বাংলা ৭৭ম

Check Also

চীনা সেনাবাহিনীকে যুদ্ধের জন্য প্রস্তুতির নির্দেশ

অনলাইন ডেস্কঃ সর্বদা যুদ্ধের জন্য প্রস্তুত থাকতে ও মৃত্যুকে ভয় না পেতে সেনাবাহিনীর প্রতি আহ্বান …