Thursday , July 18 2019
Home / বিনোদন / চলচ্চিত্রের কিংবদন্তি নায়ক বুলবুল আহমেদের সপ্তম মৃত্যুবার্ষিকী আজ

চলচ্চিত্রের কিংবদন্তি নায়ক বুলবুল আহমেদের সপ্তম মৃত্যুবার্ষিকী আজ

অনলাইন ডেস্ক:আজ ১৫ জুলাই দেশীয় চলচ্চিত্রের কিংবদন্তি নায়ক বুলবুল আহমেদের সপ্তম মৃত্যুবার্ষিকী। ২০১০ সালের এই দিনে তিনি পৃথিবীর মায়া কাটিয়ে না ফেরার দেশে পাড়ি জমান। তার মৃত্যুবার্ষিকীতে দিনটি বিশেষভাবে উদযাপনের উদ্যোগ নিয়েছে তার পরিবারের সদস্যরা।

সুদর্শন ও সুশিক্ষিত এই অভিনেতা অভিনয় গুণে পৌঁছাতে পেরেছিলেন সব শ্রেণির দর্শকের অন্তরে। বুলবুল আহমেদের জন্ম ১৯৪১ সালে পুরান ঢাকায়। তার আসল নাম তাবারক আহমেদ। আদর করে তার বাবা-মা বুলবুল বলে ডাকতেন। দাম্পত্য জীবনে বুলবুল আহমেদের স্ত্রী ডেইজি আহমেদ। এই দম্পতির তিন সন্তান হলেন- মেয়ে ঐন্দ্রিলা ও তিলোত্তমা এবং ছেলে শুভ। দারুণ মেধাবী ছিলেন বুলবুল। পড়াশোনা করেছেন ঢাকার কলেজিয়েট স্কুল, নটর ডেম কলেজ ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে।

বুলবুল আহমেদ অভিনীত উল্লেখযোগ্য টিভি নাটকগুলো হচ্ছে- মালঞ্চ, ইডিয়েট, মাল্যদান, বড়দিদি, আরেক ফাল্গুন, শেষ বিকেলের মেয়ে। ধারাবাহিক ও খন্ড নাটক মিলিয়ে প্রায় চার শতাধিক নাটকে তিনি অভিনয় করেছেন। তার অভিনীত সর্বশেষ টিভি নাটক ছিল ২০০৯ সালে শুটিং করা ‘বাবার বাড়ি’। বুলবুল আহমেদ অভিনীত উল্লেখযোগ্য অন্যান্য চলচ্চিত্রের মধ্যে রয়েছে- ধীরে বহে মেঘনা, জীবন নিয়ে জুয়া, রূপালী সৈকতে, বধূ বিদায়, জন্ম থেকে জ্বলছি, দি ফাদার প্রভৃতি। বুলবুল আহমেদ অভিনীত সর্বশেষ চলচ্ছিত্র ‘দুই নয়নের আলো’।

চলচ্চিত্রে অভিনয়ের পাশাপাশি চলচ্চিত্র পরিচালনাও করেন বুলবুল আহমেদ। তিনি ওয়াদা, মহানায়ক, ভালো মানুষ, রাজলক্ষ্মী শ্রীকান্ত, আকর্ষণ, গরম হাওয়া, কত যে আপন প্রভৃতি সিনেমার সফল নির্মাতা ছিলেন।

ঢাকাই ছবির নন্দিত অভিনেতা বুলবুল আহমেদের মৃত্যু দিবসে তার আত্মার শান্তি কামনা করছি। অদেখা ভুবনে ভালো থাকুন তিনি।যতোদিন এদেশের চলচ্চিত্র থাকবে ততোদিন তিনি আমাদের ‘মহানায়ক’ হয়ে থাকবেন।

 

Check Also

সালমানের ‘টাইগার জিন্দা হ্যায়’ ছবির সাফল্যের পেছনে মোদি??

সালমান খান অভিনীত সদ্য মুক্তি পাওয়া ‘টাইগার জিন্দা হ্যায়’ ছবির সাফল্যের সঙ্গে নাকি জড়িয়ে আছেন …